রাজাপুরে নির্বাচন কালীন আনসার নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

Spread the love

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে রাজাপুরে পিসি, এপিসি ও আনসার নিয়োগ এবং তাদের ভাতা প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে । গত রবি ও সোমবার দুপুরে রাজাপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে পিসি এপিসি ও আনসারদের ভাতা প্রদানকালে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আসা পিসি এপিসি ও খন্ডকালীন আনসার সদস্যরা এ অভিযোগ করেন। ভাতা নিতে আসা একাধিক আনসার সদস্যরা অভিযোগ করে জানান, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দায়িত্ব পালনের জন্য উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড থেকে ৪জন মহিলা ও ৮জন পুরুষ নিয়ে ১২ জন সদস্যের একটি একটি গ্রুপ করে মোট ৫০টি গ্রুপে পিসি এপিসি পদের জন্য খন্ডকালীন আনসার সদস্যরা আবেদন করেন। এদের কাউকে অফিস খরচ আবার কাউকে একাউন্ট করার কথা বলে গ্রুপ কমান্ডার প্রত্যেকের কাছ থেকে ১হাজার টাকা তুলে নেয়। রোলা গ্রামের আনসার সদস্য নারগিস আক্তার বলেন, অনেকেরই ইচ্ছা ছিল নির্বাচনের ডিউটি করার কিন্তু যারা টাকা দিতে পেরেছি শুধু তাদেরকেই নিয়োগ দেয়া হয়েছে। নিয়োগের সময় অফিস খরচের কথা বলে আমার কাছ থেকেও ১হাজার টাকা নিয়েছে। আজ ভাতা নিতে আসছি এখন আবার ২শত টাকা চায়। এই ২শত টাকা না দিলে আমাদের ভাতা আটকিয়ে রাখবে বলে জানিয়েছে আমাদের গ্রুপ কমান্ডার মিজান মৃধা। সদর ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের রুহুল আমিন বলেন, ৪হাজার ৫শত ৬৭ টাকা থেকে ১হাজার ২শত টাকা তারা অফিস খরচের কথা বলে নিয়ে গেল। প্রথমে টাকা দিতে চাইছিলাম না, কিন্তু ভবিষ্যতে আর কোন কাজে ডাকবেনা জানালে কমান্ডারকে টাকা দিতে বাধ্য হই। এ ব্যাপারে রাজাপুর উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা মিলন রানী হালদার টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, আমি শুনেছি কমান্ডাররা আমাদের কথা বলে আনসার সদস্যদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে কিন্তু এটা প্রতিরোধ করার কোন ক্ষমতা আমার নেই বলে অসহায়ত্ব প্রকাশ করেন তিনি।

Leave a Comment