মানবিক সংকটে গাইবান্ধার যৌনকর্মীরা

Spread the love

ডেস্ক রিপোর্ট:

সস্তা প্রসাধনীর গন্ধ ভেসে উঠে গুমোট বাতাসে। চাপা নারী কন্ঠ ভেসে আসে। নারী অনুযোগ করে আয় রোজগার সব বন্ধ, ঘরে খাবার নেই। গৃহস্হালি কাজে কেউ নেয় না। করোনা দহনে করুন মানবিক সংকটে গাইবান্ধার যৌনকর্মীরা। যৌন কর্মী রেশমার (ছদ্মনাম) ভাষ্যে গাইবান্ধায় শতাধিক নারী দেহ ব্যাবসার সাথে জড়িত। সব শ্রেনী পেশার মানুষ কিছু না কিছু ত্রান সহযোগিতা পেলেও রেশমা ত্রানের নাগাল পায়নি। প্রায় আধাপেটে থাকতে হচ্ছে। বিয়ের সাতমাসের মাথায় ভুল চিকিৎসায় মারাযায় স্বামী। স্বামীর মৃত্যুর একমাসের মাথায় শ্বশুরবাড়ীর লোকেরা রেশমাকে তাড়িয়ে দেয়। পিতৃহীনা রেশমা অভাবী মায়ের কাছে আশ্রয় নেয়। রাস্তা বাঁধার কাজ দিয়ে ইউপি মেম্বার তার শেষ সর্বনাশ করে। সর্বনাশের সময় কূলকিনারা হীন রেশমা অভাবের তাড়নায় কাঁপতে কাঁপতে বলেছিলো ‘আপনার বুঝি আল্লাহ -রসুল হাশর দোজখের ভয় নাই?’ এরপর হাতবদল হতে হতে রেশমা এখন অন্ধকারের মানুষ। অন্যসব যৌনকর্মীদের জীবনের গল্প প্রায় একইরকম পুতুলের বাক্স। জীবনের কঠিন মহামারী পার করলেও করোনা মহামারীতে অসহায় এই নারীদের দেখার কেউ নেই। জরুরীভাবে তাদের খাদ্য, অর্থ, ওষুধ প্রয়োজন।

Leave a Comment