বর্তমান পরিস্থিতিতে বৈদ্যুতিক তার পাল্টানোর নামে জনগণকে বিদ্যুৎহীন করা বন্ধ করুন

Spread the love

ডেস্ক রিপোর্ট:
করোনাভাইরাস আতঙ্কে থমকে গেছে স্বাভাবিক জীবন। এরই মধ্যে বৈদ্যুতিক তার পাল্টানোর অজুহাতে নলছিটি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় কখনো আগাম নোটিশে আবার কখনো নোটিশ ছাড়াই সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রাখা হচ্ছে। গত ৫দিনের ৪দিনই দিনের বেলায় বিদ্যুৎ ছিল না কয়েকটি এলাকায়। এতে বাসায় থাকা লোকজনের জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। সংবাদ বা তথ্য বঞ্চিত এই জনগণ থাকছে অন্ধকারে। করোনার আপডেট তারা জানতে ব্যর্থ হচ্ছে। রাত ৯টার পর বিদ্যুৎ আসলেও অনেক ক্ষেত্রে তা কোন কাজে আসছে না ওই গ্রামাঞ্চলগুলোতে। কারণ হিসেবে জানা গেছে, ওই সব এলাকার বাসিন্দারা অনেকে রাত ৯টার আগেই ঘুমিয়ে যায়। এভাবে লোকজনকে তথ্যহীন অন্ধকারে রাখার দ্বায়ভার বিদ্যুৎ বিভাগের উপর বর্তায় বলে গ্রামবাসীদের অভিমত। প্রশ্ন হলো, করোনাভাইরাস আতঙ্কের মাঝে এভাবে বিদ্যুৎ নিয়ে টালবাহানা করাটা কতটা যুক্তিযুক্ত! বৈদ্যুতিক তারগুলো অত পচে যায়নি যে এখুনি ছিড়ে পড়বে। আরো কয়েক বছর গেলেও এমন ছিড়ে পড়বে না। তাহলে এই করোনা আতঙ্কের মাঝে এমন কেন করা হচ্ছে। দু’মাস পড়েও তার পাল্টানো যাবে। কিন্তু কোন মানুষের ক্ষতি হলে তা আর কোন দিন পূরণ হবে না। নলছিটির বিদ্যুৎ বিভাগ আপনার এসব জনদুর্ভোগ বন্ধ করুন। জনগণকে বিদ্যুৎহীন করে তথ্যহীন অন্ধকারে রাখবেন না দয়া করে। এখন মানুষজন সরকারের পরামর্শ মেনে নিজ নিজ গৃহে অবস্থান করতেছে। বের হচ্ছে কম। বাসায় টিভিতে খবর দেখে আপডেট জানছে করোনার ব্যাপারে। গরমকালে একটু ফ্যানের বাতাসে বসতেছে। বিদ্যুৎহীন করে আপনারা তাদেরকে কষ্ট দিয়ে কি সুখ পাচ্ছেন। এতে করে তাদের বাসায় অবস্থান করা কঠিন হবে। বৈদ্যুতিক তার পাল্টানোর সময় আরো পাবেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে এই তার পাল্টানোর নামে জনগণকে বিদ্যুৎহীন করা বন্ধ করুন। জনগণ শাস্তি না সেবা চায়……

Leave a Comment