বরিশালে কাভার্ডভ্যানের চাপায় আহত ট্রাফিক সার্জেন্টকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় প্রেরণ

Spread the love

বরিশালে কাভার্ডভ্যানের চাপায় আহত ট্রাফিক সার্জেন্টকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় প্রেরণ রিপোর্ট : ইমাম বিমান বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে দায়িত্ব পালনকালে কাভার্ডভ্যানের চাপায় গুরুতর আহত ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট গোলাম কিবরিয়াকে সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য এয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বরিশাল-পটুয়াখালী মহাসড়কের জিরো পয়েন্ট এলাকায় দায়িত্ব পালনের সময় পটুয়াখালির দিক থেকে আসা বেপরোয়া গতিতে আসা যমুনা গ্রুপের একটি কাভার্ডভ্যান তাকে চাপা দেয়। গুরুতর অবস্থায় তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত সার্জেন্ট গোলাম কিবরিয়া দীর্ঘদিন ধরে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত। তার বাড়ি পটুয়াখালী। এ বিষয় বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার হাবিবুর রহমান খান বলেন, সার্জেন্ট গোলাম কিবরিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কিছুটা দূরে জিরো পয়েন্ট এলাকায় পেশাগত দায়িত্ব পালন করছিলেন। এ সময় যমুনা গ্রুপের একটি কাভার্ডভ্যান বরিশাল যাচ্ছিল। বেপরোয়া গতির কারণে সার্জেন্ট গোলাম কিবরিয়া কাভার্ডভ্যানটি থামানোর সংকেত দেন। তা অমান্য করে কাভার্ডভ্যানটি দ্রুত গতিতে চালাতে থাকেন চালক। সার্জেন্ট কিবরিয়া মোটরসাইকেল নিয়ে ধাওয়া করে ট্রাকের সামনে গিয়ে পথরোধ করলে কাভার্ডভ্যানটি তাকে চাপা দিয়ে কাভার্ডভ্যানটি নিয়ে দ্রুতগতিতে চালক পালিয়ে যায়। ঘটনা স্থান থেকে স্থানীয়রা সার্জেন্ট কিবরিয়াকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। ঘটনাটি আশপাশের থানা পুলিশকে জানিয়ে দেয়া হলে ঝালকাঠির নলছিটি থানা পুলিশ ট্রাক ও ঘাতক চালক জলিল সিকদারকে আটক করে। জলিল সিকদার টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বাসিন্দা বলে জানাযায়। আহত গোলাম কিবরিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য এয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। তার অবস্থা গুরুতর। বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এসএম বাকির হোসেন বলেন, পুলিশের সার্জেন্ট গোলাম কিবরিয়ার দুই পা গুরুতর জখম হয়েছে। তার পায়ের বেশ কয়েকটি স্থান ভেঙে গেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য সার্জেন্ট গোলাম কিবরিয়াকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

Leave a Comment