পুনরায় হয়রানী থেকে বাঁচতে চায় রোকেয়া!

Spread the love

পুনরায় হয়রানী থেকে বাঁচতে চায় রোকেয়া!

ঝালকাঠি জেলার কাঠালিয়া উপজেলার মহিষকান্দি গ্রামের মৃত মেহের মল্লিকের মেয়ে রোকেয়া বেগম। তার পিতার মৃত্যুর পর থেকে পৈত্রিক জমি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ মামলা চলে। এক পর্যায়ে ঝালকাঠির জ্যেষ্ঠ আদালতের মাধ্যমে তার পিতার রেখে যাওয়া জমি টুকু বুঝিয়ে দিলেও শান্ত হয়নি ঐ এলাকার ভূমি দস্যুরা। যাদের দ্বারা প্রতিনিয়ত ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে রোকেয়া, এরা হলেন মজিবর খান, ইদ্রিস খান, আঃ জব্বার তালুকদার, আঃ রব তালুকদার, আঃ রহিম তাং, মোসাঃ হাফিজা বেগম, মোঃ মোফাজ্জল মৃধা, মোসাঃ ইউনুছা বেগম, মোঃ ছালাম মৃধা, মোঃ বাইজিদ খান, তরিকুল খান, কবির খান, রুম্মান, সুজন, আঃ কুদ্দুছ মৃধা। জানা গেলে রোকেয়া বেগমের পৈত্রিক সম্পত্তি ভূমি দস্যু রাগবোয়ালের পেটে থাকায়, অনুপায় হয়ে সাবেক কাঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া সিকদারের কাছে ১ একর ৮৯ শতাংশ মহিষকান্দি মৌজার রোকেয়া বেগমসহ তার ২ (দুই) বনের ৮ একর ১৯ শতাংম সম্পত্তির মধ্যে থেকে বিক্রি করে চেয়ারম্যানের কাছে। বিক্রি করার পর থেকে বাকী জমি রোকেয়া বেগম ভোগদখল করিয়া আসিতেছিল। কিন্তু ইতিমধ্যে ভূমি দস্যুরা রোকেয়া বেগমের জমিতে বাধা প্রদান ও জোরপূর্বক দখলের চেষ্ঠা করে। এসময় অনুপায় হয়ে ৩০/০৭/২০১৯ তারিখ ঝালকাঠি জ্যেষ্ঠ আদালতে ১৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন রোকেয়া বেগম। যাহার নং- ৩৬১/২০১৯ তারিখঃ ৩০/০৭/২০১৯ইং। মামলাটি আদালত আমলে নিয়ে কাঠালিয়া থানার ওসি কে শান্তিভঙ্গের না হওয়ার জন্য স্থিতি বজায় রাখার নির্দেশ দেন। রোকেয়া বেগম জানান, আমাকে এ যাবৎ আনুমানিক ৩০/৪০ টি মামলা দিয়ে হয়রানী করে আসছে ভূমি দস্যুরা। সাবেক উপজেলা চেয়াম্যানের কাছে জমি বিক্রি করে কিছুদিন স্বস্তি পেলেও লাভ হলো না শেষ পর্যন্ত। পুরনায় হয়রানী শুরু হয় রোকেয়া বেগমের, ভূমি দস্যুরা এথেকে আবার বাঁচতে চায় রোকেয়া বেগ

Leave a Comment