ঝালকাঠি জেলা প্রশাসকের নিকট বিএনপি’র স্মারকলিপি পেশ

Spread the love


মোঃমনির হোসেন ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠিতে জেলা বিএনপি’র উদ্যোগে জেলা প্রশাসক মো: হামিদুল হক এর নিকট স্মারকলিপি পেশ করেছে।।সোমবার সকাল ১০ টায় কৃষকদের বোরো ধানের ন্যায্য মুল্য ও পাটকল শ্রমিকদের মজুরি কমিমন বাস্তবায়ন ও বকেয়া মজুরিসহ ৯ দফা যৌক্তিক দাবিগুলি দাবীগুলো সরকারকে মেনে নেয়ার জন্য স্মারকলিপি পেশ করা হয়।এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মো: মনিরুল ইসলাম নুপুর,সহসভাপতি এ্যাড. হুমায়ূন কবীর বাবুল, যুগ্ম সম্পাদক এ্যাড. মো: শাহাদাৎ হোসেন, শহর বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ্যাড. নাসিমুল হাসান, শ্রমিক দলের জেলা সভাপতি মো: টিপু সুলতান প্রমুখ।স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয় উৎপাদিত ধানের মূল্য উৎপাদনের খরচের চেয়ে অনেক গুন কম হওয়ায় কৃষকরা হাহাকার করছে।উৎপাদন খরচ থেকে তিনশ টাকা কমে প্রতি মন ধান বিক্রি করতে হচ্ছে। প্রতি বিঘা জমিতে কৃষকের ক্ষতি হচ্ছে দুই হাজার টাকা। ধানের ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় টাঙ্গাইল,জয়পুর হাট ও নেত্রকোনাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে কৃষকরা পাকা ধান ক্ষেতে আগুন দিচ্ছে,পাকা ধানে মই দিচ্চে,সড়কে ধান ছিটিয়ে প্রতিবাদ করছে। সরকার প্রতি মন ধান কেনার জন্য ১হাজার ৪০ টাকা প্রদান কররেও কৃষকের হাতে যাচ্ছে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা। বাকী টাকা যাচ্ছে সরকারের আনুকুল্য পাওয়া মধ্যস্বত্বভোগীদের পকেটে।এ নিয়ে সরকারের মাথা ব্যথা নাই। ধানের দাম কমার জন্য উদ্ভুত সংকটে সরকার উদাসীন।এ বিষয়ে তাদের কোন দায় নেই বলে কৃষি মন্ত্রী  সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। সরকারের গণবিরোধী নীতির কারণেই কৃষকরা উৎপাদিত ধানের ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অথচ কৃষকরাই দেশের আত্মা ও দেশের প্রাণ। কৃষকদের রক্ষা করতে না পারলে দেশে দূর্যোগ নেমে আসবে।তারা উৎপাদন বন্ধ করে দিলে দেশে দুর্ভিক্ষ নেমে আসবে, ১৭ কোটি মানুষ না খেয়ে মরবে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি,ঝালকাঠি জেলা  মধ্যস্থাকারি সুবিদাভোগীদের কাছ থেকে ধান ক্রয় না করে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান কিনে ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করা ও মধ্য স্বত্যভোগী সিন্ডিকেটের দৌরাত্ম বন্ধ করার জন্য সরকারকে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে আহ্বান জানাচ্ছে। জেলা প্রশাসক স্মারকলিপি গ্রহন করে বিষয়টি দেখবেন বলে বিএনপি নেতৃবৃন্দকে জানান।Attachments area

Leave a Comment