ঝালকাঠিতে বেহালদশা হিমানন্দকাঠির একমাত্র গুরুত্বপূর্ণ গ্রামিন সড়কটি যেন দেখার কেউ নেই

Spread the love


সৈয়দ রুবেল, ঝালকাঠি প্রতিনিধি :

ঝালকাঠি জেলার একমাত্র ঘনবসতি পূর্ন উপজেলার নবগ্রাম ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড এর হিমানন্দকাঠি বাজার সংলগ্ন এই রাস্তাটি রমজানকাঠি কারিগরি কৃষি কলেজ পর্যন্ত খুবই গুরুত্বপূর্ণ ৷ এই রাস্তায় চলাচল করে ১০০ থেকে ১৫০ পরিবার। ঐ এলাকা বাসীর মধ্যে রীতিমতো হিমসিম খেতে হচ্ছে, তাই স্হানিয় এলাকাবাসীর একান্ত প্রানের দাবী স্হানিয় সাংসদ সদস্য আলহাজ আমির হোসেন আমু এমপি মহোদয়ের নিকট, পত্রিকায় সংবাদটি প্রকাশিত হওয়ায় যেন মাননীয় সাংসদ সদস্যের সুনজরে আসে। বর্তমান সরকারের আমলে যেখানে নগর হচ্ছে শহর, ডিজিটাল বাংলার রুপরেখা সেখানে এই গ্রামের ৫০০/৬০০ শতাধিক জনসংক্ষার জন্য এই সড়কটি যেন আজ মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। তাই এলাকার এক মাত্র জনপ্রতিনিধি বাংলাদেশ সরকারের আওয়ামী লীগের উপদেশষ্টা পরিষদের সদস্য ও শীল্প মন্ত্রনালয়ের সম্পর্কিত সংসদীয় স্হায়ী কমিটির সভাপতি জনাব আলহাজ্ব আমির হোসেন আমু এমপির আজ এলাকার একমাত্র ভরশা হয়ে দেখা দিচ্ছে এই রাস্তাটি। তাদের ধারনা হয়তো যুগের পর যুগ চলে গেলেও চলাচলের উপযুক্ত হবে না এই রাস্তাটি ৷ বর্ষার সময়ে চলাচলের উপযোগী বলে মনে হচ্ছে না ৷ এতে ঘটতে পারে যেকোনো মুহূর্তে দূর্ঘটনা ৷ বার বার রাস্তাটি পাশ হয়েছে বলে এলাকাবাসী শুনতে পাচ্ছে আরও ১৫ বছর আগে থেকে ৷ প্রতিদিন জনগনকে হাটতে হয় দীর্ঘ কর্দমাক্ত পথ আবার কখনো কখনো দেখা যায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছোট্ট ছোট্ট কচিকাঁচা সোনামণি ও বয়স্ক লোক এবং বাচ্চাদের হোঁচট খাওয়ার ঘটনা প্রতিনিয়ত। এলাকাবাসীর ধারনা তাদের এই সপ্নটা সপ্ন থেকে যাবে ৷ এলাকাবাসী সংসদ সদস্য ঝালকাঠি বাঁশির নয়নমণি আলহাজ্ব আমির হোসেন আমু এমপি মহোদয় তার নিকট আকুল আবেদন করেছেন।হিমানন্দকাঠি বাজার সংলগ্ন হতে রমজানকাঠি কৃষি কলেজ পর্য্যন্ত এই রাস্তাটি সংস্কার করার জন্যে দৃষ্টি কামনা করেন ৷ এই গ্রামের স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা গামী ছাত্রছাত্রীরা নিতান্তই কষ্টের মাঝে থেকে লেখা পড়া করতে বেগতিক অবস্হায় পড়তে হয়। এলাকাবাসী বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জনবান্ধব অসহায় মানুষের সুখ-দুঃখের ভাগীদার জননেত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি কামনা করছি। যাহাতে আমাদের এই রাস্তাটি দিয়ে ছেলেমেয়েরা স্কুল-কলেজে যেতে পারে।

Leave a Comment