ঝালকাঠিতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামী দুলাল খানের যাবজ্জীবন ভাবি খালাস

Spread the love

ঝালকাঠিতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হত্যার দায়ে
স্বামী দুলাল খানের যাবজ্জীবন ॥ ভাবি খালাস

ঝালকাঠিতে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যার দায়ে মো. দুলাল খান (৫০) নামের এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদ- দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তার ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এই মামলার অপর আসামি দুলাল খানের ভাবি সেলিনা খানের বিরুদ্ধে অপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাঁকে খালাস দেন। দন্ডিত দুলাল কাঁঠালিয়া উপজেলার আমুয়া ইউনিয়নের ছোনাউটা গ্রামের বাসিন্দা।
সোমবার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এস কে এম তোফায়েল হাসান এ রায় ঘোষণা করেন। সাজাপ্রাপ্ত মো. দুলাল খান ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলার সোনাউডা গ্রামের মো. ফকরউদ্দিনের ছেলে। রায় ঘোষণার সময় আসামি দুলাল আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
মামলার বিবরন ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০০৮ সালের ১২ এপ্রিল গবাদিপশুকে খাবার দিতে দেরি করায় স্বামী দুলাল খান ক্ষিপ্ত হয়ে তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হনুফা বেগমের গোপনাঙ্গে সরু লাঠি দিয়ে আঘাত করলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় হনুফা বেগমের বড় ভাই হাজি আল মামুন বাদী হয়ে স্বামী দুলাল ও তার বড় ভাইয়ের স্ত্রী সেলিনা বেগমকে আসামী করে কাঁঠালিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আ. রব আকন্দ গত ২০০৮ সালের ২১ আগস্ট এজাহারনামীয় আসামী দুজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ২০০৯ সালের ৭ এপ্রিল মামলার বিচার শুরু করে আদালত মামলায় আটজনের সাক্ষ্য গ্রহন করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত সোমবার এ রায় দেন।
আদালতে সরকার পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পিপি এম আলম খান কামাল এবং আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির।

Leave a Comment