ক্যানসার সৃষ্টিকারী উপাদান থাকায় বাংলাদেশে রেনিটিডিন উৎপাদন ও বিক্রি নিষিদ্ধ

Spread the love

ডেস্ক ; আজ রোববার ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে এ সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। ক্যানসার সৃষ্টিকারী উপাদান থাকায় গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ রেনিটিডিন উৎপাদন, আমদানি ও বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে বাংলাদেশ ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

এর আগে রাজধানীর মহাখালীতে বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির নেতাদের সঙ্গে ওষুধ প্রশাসন কর্মকর্তাদের বৈঠক হয়। দ্রুত সময়ের মধ্যে কোম্পানিগুলো বাজার থেকে রেনিটিডিন প্রত্যাহার করে নেবে বলে বেঠকে সিদ্ধান্ত হয়। সোমবার এ বিষয়ে জাতীয় দৈনিকে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। রেনিটিডিন ওষুধে ক্যানসার সৃষ্টিকারী উপাদান রয়েছে যুক্তরাজ্যে এমন প্রতিবেদন প্রকাশের ভিত্তিতে ওষুধটি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান বলেন, দেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবার কথা বিবেচনায় নিয়ে বাংলাদেশ ওষুধশিল্প সমিতির নেতাদের সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। রেনিটিডিন ওষুধের কাঁচামাল আমদানি, উৎপাদন ও বিক্রির ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

বর্তমানে দেশের ৩১টি ওষুধ কোম্পানি প্রতিবেশী দেশ ভারতের ফারাক্কা নামের একটি কোম্পানি থেকে রেনিটিডিন ট্যাবলেটের কাঁচামাল আমদানি করে। এ ছাড়া ডক্টর রেড্ডি নামের আরেকটি কোম্পানির কাঁচামাল আমদানির জন্য ব্ল্যাকলিস্টে তালিকাভুক্ত থাকলেও সেখান থেকে এখনো আমদানি করা হয়নি বলে জানান মহাপরিচালক।

মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘জনস্বার্থ বিবেচনায় এ দুটি কোম্পানি থেকে রেনিটিডিনের কাঁচামাল আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়। এ ছাড়া ওই কোম্পানি থেকে আমদানিকৃত কাঁচামাল দিয়ে নতুন করে কোনো রেনিটিডিন উৎপাদন করা যাবে না। বাজার থেকে কোম্পানিগুলো নিজ উদ্যোগে রেনিটিডিন ট্যাবলেট প্রত্যাহার করে নেবে।’ এ ব্যাপারে জাতীয় দৈনিকে সোমবার গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে বলে জানান তিনি।

মহাপরিচালক জানান, বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির নেতারা বাজার থেকে রেনিটিডিন প্রত্যাহার, নতুন করে কাঁচামাল আমদানি ও উৎপাদন না করার ব্যাপারে বৈঠকে সম্মত হন।

রেনিটিডিন কাঁচামাল আমদানি, উৎপাদন ও বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা সাময়িক। কোম্পানিগুলো বাজার থেকে রেনিটিডিন নমুনা সংগ্রহ করে নিজস্ব ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করে দেখবে ক্ষতিকর কিছু আছে কি না। এ ছাড়া অধিদপ্তরও নিজস্ব উদ্যোগে রেনিটিডিন ট্যাবলেটের গুণগত মান পরীক্ষা করবে।

অ্যাসিড নিঃসরণ প্রতিরোধসহ পেটের পীড়ার নানা উপসর্গের চিকিৎসায় বিশ্বজুড়ে বহুল প্রচলিত ওষুধ রেনিটিডিন। সম্প্রতি এই ওষুধে সম্ভাব্য ক্যানসার সৃষ্টিকারী উপাদান পাওয়ার পর বেশ কয়েকটি দেশে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র স্যান্ডোজের তৈরি রেনিটিডিন ক্যাপসুলের মধ্যে ‘এন-নিট্রোসডিমিথাইলামাইন (এনডিএমএ)’ নামে পরিবেশ দূষণজনিত এ উপাদানের উচ্চমাত্রার উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়ার পর কোম্পানিটি তাদের ওষুধটি বাজার থেকে তুলে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

সপ্তাহ দুয়েক আগে যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন সংস্থা (এফডিএ) ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রাথমিক পরীক্ষায় বেশ কিছু ব্র্যান্ডের রেনিটিডিনের মধ্যে এনডিএমএর উপস্থিতি পাওয়ার পর সতর্কতা জারি করা হয়।

Leave a Comment