ঈদের পোশাক না দিতে পেরে দুই সন্তানকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা

Spread the love

ডেস্ক রিপোটঃ যশোরে ঈদ উপলক্ষে নতুন পোশাক না কিনে দিতে পেরে দুই শিশুসন্তানকে বিষ খাইয়ে হত্যার পর মা আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল (২৭ মে) দিবাগত রাত ১২টার দিকে শর্শা উপজেলার চালিতাবাড়ীয়া দীঘা গ্রামে হৃদয়বিদারক এই ঘটনা ঘটেছে।

আমাদের বেনাপোল সংবাদদাতা জানান, নিহতরা হলেন হামিদা খাতুন ও তার দুই সন্তান শরিফা খাতুন (১১) ও সোহান হোসেন (৪)। হামিদা খাতুনের স্বামী ইব্রাহিম চা বিক্রেতা। এলাকায় তার একটি চায়ের দোকান রয়েছে।

এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্র জানায়, দরিদ্রতার নির্মম কষাঘাতে জর্জরিত ইব্রাহিমের পরিবারে নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা থাকে প্রায় সারাবছর। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝামেলা লেগেই থাকতো। আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতরে সন্তানদের নতুন পোশাক কিনে দেওয়া নিয়ে গতকাল রাত সাড়ে ১১টায় দিকে তাদের মধ্যে তুমুল ঝগড়া হয়। এর এক পর্যায়ে স্ত্রী হামিদা খাতুন নিজে তার শিশুকন্যা শরিফা ও শিশুপুত্র সোহানকে বিষের ট্যাবলেট খাইয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে নিজেও একই ধরনের ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করেন।

শার্শা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান জানান, এটি হত্যা না আত্মহত্যা, তা ময়নাতদন্ত রিপোর্ট ছাড়া বলা যাবে না। হত্যার বিষয়টি রহস্যজনক বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ ঘটনায় পুলিশ তিন ব্যক্তিকে আটক করেছে বলেও জানান তিনি

Leave a Comment